ঈদ আমেজে ১৬ আগস্ট, শিল্পকলার মঞ্চে থিয়েটার ‘৫২ -এর নাটক ” নননপুরের মেলায় একজন কমলাসুন্দুরী ও একটি বাঘ আসে “।

Share This Story !

গল্পটা এক যুদ্ধ শিশুর।
কাজলঙ নদীর জলে ভাসতে ভাসতে এসে ঘরবিবাগী মুক্তিযোদ্ধা মঙ্গলের পরিবারে ঠাঁই পায় একাত্তরের যুদ্ধশিশু জাইদুল। সহানুভূতি আর ফিসফাসের মধ্যে আত্মপরিচয় খুঁজে ফেরে সে। নননপুরে মুক্তিযুদ্ধ আর মুক্তিযোদ্ধাদের সাহসিকতার কথা শুনতে শুনতে বড় হতে থাকা জাইদুল
দিশেহারা হয়ে পৃথিবী থেকে বিদায় নেয়। অপূর্ণ জীবনের দায় মেটাতে ঈশ্বরের কাছ থেকে চেয়ে পাওয়া নতুন জীবন নিয়ে বাঘের বেশে আবার পৃথিবীতে ফিরে আসে সে, নননপুরের রাস্তায় খুঁড়তে থাকে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি।

আসছে ‘১৬ আগস্ট ২০১৯,’ তারিখে, শুক্রবার। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে সন্ধ্যা ৭টায়, ‘নননপুরের মেলায় একজন কমলাসুন্দরী ও একটি বাঘ আসে’ নাটকটির ২১ তম মঞ্চায়ন হতে যাচ্ছে । নাটকটি রচনা করেছেন ‘বদরুজ্জামান আলমগীর’। নির্দেশনা দিয়েছেন টিভি ও মঞ্চ অভিনেত্রী ‘জয়িতা মহলানবীশ’। নাটকটিতে অভিনয় করেছেন – নূরে খোদা মাসুক সিদ্দিক, রবিন বসাক, রুবাইয়া মনজুর পিপ, সুরভী রায়, মো: নজরুল ইসলাম, আদিব মজলিশ খান, মো: রাসেল, ইব্রাহীম তারেক, আদ্রিতা রহমান, শাহিনূর শিকদার পাখি,রামিম হাসান তপু, মোহাম্মদ নাদিম হাসান,মো:রিফাত সরকার, রায়হান খান, নূপুর শর্মা, দিপু আহমেদ প্রেম, রুদ্র রায় অপু, রাহাত ও সানি। নাটকের সেট ডিজাইন করেছেন পলাশ হেনড্রি সেন। লাইট ডিজাইন করেছেন আসলাম অরন্য।প্রপস ডিজাইন করেছেন পলাশ হেনড্রি সেন ও রবিন বসাক। সংগীত পরিচালনা করেছেন এ.বি.এস.জেম। কন্ঠ দিয়েছন চেতনা রহমান ভাষা, গোপী দেবনাথ, সুরভী রায়, মো: নজরুল ইসলাম, রতন হক ও জয়িতা মহলানবীশ। গানে সুর দিয়েছেন রতন হক। পাহাড়ী সুর, কীর্তন এর সুর ও বিয়ের গীত সংগৃহিত। অকাল প্রয়াত প্রাচ্যনাটের সদস্য ‘রিঙ্কন সিকদার’ এর, ‘যাইবার আগে যাও বলে যাও’ গানটি ব্যবহার করা হয়েছে। সংগীত প্রক্ষেপন করেছেন মো: নেওয়াজ শরীফ। কোরিওগ্রাফার হিসেবে কাজ করেছেন কামরুল হাসান ফেরদৌস, রবিন বসাক, নূরে খোদা মাসুক সিদ্দিক।
পোশাক ডিজাইন করেছেন, ‘আফছান আনোয়ার’। প্রচ্ছদ ডিজাইন করেছেন শাহীনুর রহমান ।নাটকের সমন্বয়ক হিসাবে কাজ করেছেন ‘মো: নজরুল ইসলাম’।


বাংলার মিথ ও বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের মিথস্ক্রিয়া ঘটেছে এই নাটকে। নাটকটি একটি যুদ্ধ শিশুকে কেন্দ্র করে আবর্তিত ও এর প্রতিটি চরিত্রই এই বাংলার সাধারন গ্রামীন মানুষের প্রতিনিধিত্ব করে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *