বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি ছাত্র অধিকার পরিষদের

Share This Story !

স্টারবার্তা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) উপাচার্য খোন্দকার নাসির উদ্দিনের পদত্যাগ দাবিতে রাজু ভাস্কর্যে সংহতি বিক্ষোভ করে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ ।

বশেমুরবিপ্রবিতে চলমান আন্দোলনে সংহতি ও শিক্ষার্থীদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ জানাতে আজ শনিবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও রাজু ভাস্কর্যে সংহতি বিক্ষোভ করে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। সেখানে বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন।

ডাকসু ভিপি নুরুল হক বলেন, ‘রাজনৈতিক দলদাস ও অনুগত ব্যক্তিদের দিয়ে পরিচালনার মাধ্যমে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে আসা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যেকোনো যৌক্তিক আন্দোলনে প্রশাসন ছাত্রলীগের মাস্তান বাহিনী দিয়ে হামলা চালায়। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়েই আমরা এই চিত্র দেখেছি। একই চিত্র দেখতে পাচ্ছি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পুণ্যভূমি গোপালগঞ্জে। সেখানকার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শিক্ষার্থীদের বাছুর বলে মন্তব্য করেন।’

ভিপি নুরুল হক বলেন, ‘গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যাতে ক্যাম্পাসে না আসতে পারেন, তার জন্য একটি সাঁকো পর্যন্ত ভেঙে দেওয়া হয়েছে এবং ভাড়াটে মাস্তান দিয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করা হয়েছে। গোপালগঞ্জের প্রশাসনকে বলতে চাই, বঙ্গবন্ধুর পুণ্যভূমিকে যে উপাচার্য কলঙ্কিত করলেন, আপনারা তাঁর ও তাঁর প্রশাসনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন। এমন অপদার্থ একজন উপাচার্য গোপালগঞ্জের মাটিতে থাকতে পারেন না। শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনে ষড়যন্ত্র খোঁজা হলে তার ফল ভালো হবে না।’

প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকনের কড়া সমালোচনা করেন ডাকসু ভিপি। তিনি অভিযোগ করেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ওই কর্মকর্তা শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্টের মাধ্যমে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে চান।

সংহতি বিক্ষোভে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন বলেন, ‘বশেমুরবিপ্রবির উপাচার্য খোন্দকার নাসিরের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি জানাতে আমরা প্রয়োজনে গোপালগঞ্জে যাব। আমরা তাঁকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করছি।’

ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেন বলেন, সারা দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় শিক্ষক ও উপাচার্যরা যে উদ্দেশ্যে নিয়োগ পেয়েছেন, সেটি ছেড়ে তাঁরা দালালি করছেন। ছাত্রসমাজ এই দালালি মেনে নেবে না। উপাচার্যদের দুর্নীতির কারণে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় আন্দোলন হচ্ছে। দুর্নীতির এই ভূতকে বিতাড়িত করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কাজ কী—এই প্রশ্নের জবাব দিয়েই বশেমুরবিপ্রবির উপাচার্য খোন্দকার নাসিরকে পদত্যাগ করতে হবে।

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক বিন ইয়ামিন মোল্লার সঞ্চালনায় সংহতি বিক্ষোভে অন্যদের মধ্যে পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হাসান, লুৎফুন নাহার, আবু হানিফ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী নাহিদ ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য দেন।

এদিকে উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে আজ বশেমুরবিপ্রবি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আর শিক্ষার্থীদের আজকের মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। টানা চার দিন আন্দোলন এবং তিন দিনের আমরণ অনশন কর্মসূচি চলছে তাদের। আজ সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে পানি ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে রাখে প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী এই আন্দোলনে যুক্ত আছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে তাঁরা অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন।

হামলার ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পদত্যাগ করার কথা জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মো. হুমায়ূন কবীর। তিনি বলেন, ‘আজ শিক্ষার্থীদের ওপর যে হামলা করা হয়েছে, তা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নির্দেশে করা হয়েছে। এই হামলার তীব্র নিন্দা জানাই। নৈতিকতার দিক বিবেচনা করে আমি আমার পদ থেকে পদত্যাগ করেছি।’

তবে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর বহিরাগতদের হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেন উপাচার্য খোন্দকার নাসির উদ্দিন। তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ওপর কে বা কারা হামলা করেছে, তা আমার জানা নেই। বিশ্ববিদ্যালয় ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। তা ছাড়া পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ক্যাম্পাসে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।’

১৪৪ ধারা জারি করা হয়নি বলে জানান গোপালগঞ্জের নির্বাহী হাকিম শাহিদা সুলতানা। তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন কোনো পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি যে সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করতে হবে। তবে উপাচার্য আমাকে অনুরোধ করেছিলেন ১৪৪ ধারা জারি করতে।’

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *