আপনাদের সন্তানদের সুধুই শিক্ষিত করে গড়ে তুলবেন না

Share This Story !

নননপুরের মেলায় একজন কমলাসুন্দরী ও একটি বাঘ আসে। ছবিঃ রাহাত সরকার।

নাট্যকর্মী নাদিম হাসান তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেনঃ ছেলেমেয়েদের সুধুই শিক্ষিত করে গড়ে তুলবেন না। পড়াতে পড়াতে ভালো রেজাল্ট করবার একটা মেশিন তৈরি করবেন না।

দেশের সংস্কৃতি সম্পর্কে জানাতে চেষ্টা করুণ। ইতিহাস ঐতিহ্যের সঙ্গে যুক্ত করুণ। এতে আপনার ছেলেমেয়ে নিরাপদ থাকবে। আপনার ছেলেমেয়ের হাতে দেশ নিরাপদ থাকবে সর্বোপরি আপনি ও আপনার পরিবার নিরাপদ থাকবে।

বর্তমান সময়ে আমাদের সমাজের মানুষগুলোর যে নৈতিক অবক্ষয় শুরু হয়েছে তার বড় একটি কারণ হিসেবে আমি এটা মনে করি যে আমরা আমাদের দেশিয় সংস্কৃতি ইতিহাস ঐতিহ্য থেকে দূরে সরে গেছি বলেই এমন পরিনতি। আপনার সন্তান পড়াশোনা করে একজন মস্তবড় চুর হবে এটা আপনি নিশ্চয়ই চান না। হ্যাঁ চুর। যে সিধ কেটে চুরি করে আর যে নিজের ক্ষমতা খাটিয়ে ব্রেন খাটিয়ে অন্যের সম্পদ নিজের করে নেয় সেও চুর।

সর্বোচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যখন প্রতিবাদ করায় হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে পিটিয়ে মেরুদণ্ড ভেঙে দেয়া হয়, ভিন্নমত হওয়ায় পিটিয়ে পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হয় তখন প্রশ্ন আসতেই পারে, এরাও তো ভালো রেজাল্ট করেছে। সেরাদের সেরা হয়েছে।

কিন্তু মানুষ হয়েছে কী? নেশা, যন্ত্রের প্রতি আসক্তি, ক্যাসিনো, ধর্ষণ, নির্মমতা, বর্বরতা, দূর্নীতি এগুলো এখন নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে। তাই আপনার সন্তানকে দেশের সংস্কৃতির কাছে থাকার সুযোগ দিন। দেশের ইতিহাস ঐতিহ্যকে জানতে দিন। প্রতিযোগিতায় নামিয়ে দেবেন না।

রাহাত সরকার কমেন্ট বক্সে লিখেছেন : একটি দেশের শিক্ষা,রাজনীতি,যোগাযোগ মাধ্যম,বিনোদনের মাধ্যম সবটাই সংস্কৃতির অংশ তাই লেখকের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষন করছি-আহ্বান হোক সুস্থ্য ধারার বিনোদনের জন্য কারন অন্তরের অন্ধকারে আলো জ্বালাতে বর্তমান বংলাদেশে সুস্থ্য বিনোদনের বিকল্প নেই আর তারই একটি বিরাট অংশ-মঞ্চ নাটক।

তাই সকলে আসুন মঞ্চ নাটক দেখুন।একটি নাটক শুধুমাত্র আনন্দ দানেই সীমাবদ্ধ নয় বরং সমাজ,রাষ্ট্র তথা জীবনের কথা বলে তাই ছেলেমেয়েদের কাঁধে বই বোঝা একটু হালকা করুন তাঁদের অনুভূতিগুলোকে বেড়ে উঠতে দিন।

শিক্ষিত সুমানুষের বড় প্রয়োজন আমাদের।আমরা শিক্ষিত জাতির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকতে চাইনা,আমরা সুশিক্ষিত জাতি হতে চাই।জয় হোক সুস্থ্য ধারার বিনোদনে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *