বিরোধীদলগুলোও ক্ষমতা পাওয়ার আশায় ভারতের বিরুদ্ধে কথা বলছে না-সোহরাব

Share This Story !

বাংলাদেশের বিরোধীদলগুলোও সাম্প্রায়িক মোদির বিরুদ্ধে কোন কথা বলছে না, কোন প্রতিবাদ কর্মসূচিও দিচ্ছে না৷ ভারতের সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা চলছে মুসলমানদের উপর অত্যাচার হচ্ছে, তারা কোনো সুস্পষ্ট বক্তব্য দিয়ে তাদের অবস্থান পরিষ্কার করছে না।

ক্ষমতা লাভের জন্য ভারতের দিকে তাকিয়ে থাকতে হয়৷ বৈষম্যমূলক ও সাম্প্রদায়িক ইস্যু, দ্বিপাক্ষিক চুক্তি, রাষ্ট্রীয় সফর নিয়ে বাংলাদেশের সাধারণ জনগণ ও সাধারণ ছাত্ররা প্রতিবাদ করলেও বিরোধীদলগুলো তা করে না।

বিরোধী দলগুলো সেক্ষেত্রে নীরব ভুমিকা পালন করে কৌশলে জনগণ ও ভারতের মন রক্ষা করে৷

সত্যিকার অর্থে একটা দেশের সরকারের শক্তিশালী পররাষ্ট্রনীতি নীতি না থাকতে সে দেশ কখনো কুটনৈতিক সুবিধা লাভ করতে পারে না৷ অার একটা দেশের অবৈধ ও স্বৈরতান্ত্রিক সরকার যখন ক্ষমতা লাভের জন্য অন্য দেশের ওপর নির্ভর করে, অন্যদেশের সরকারের তৈলমর্দন করে, প্রতিবেশী দেশগুলোর জাতিগত, ধর্মীয়, সাম্প্রদায়িক ইস্যুগুলোকে অভ্যন্তরীণ ইস্যু বলে নয়ছয় বুঝায় সে সরকার কখনো বাংলাদেশের জনগণের স্বার্থ রক্তা করতে পারবে না৷

রোহিঙ্গা সমস্যাও মায়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিষয় ছিল, কিন্তু এর ফল অামাদেরকেই ভোগ করতে হচ্ছে। ভারতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার ফলাফল প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশেও প্রভাব ফেলবে, রোহিঙ্গা ইস্যুর মত ভারতের লাখ লাখ মুসলিম বাংলাদেশসহ প্রতিবেশী দেশো অাসতে বাধ্য হবে, কিংবা বাংলাদেশের মত প্রতিবেশী দেশেও সাম্প্রাদয়িক দাঙ্গা হাঙ্গাম ছড়িয়ে যেতে পারে৷

মোট কথা, একটা দেশের অবৈধ ও স্বৈরতান্ত্রিক সরকার ক্ষমতায় থাকার জন্য প্রতিবেশী দেশ সাম্প্রদায়িক সরকার মোদির তৈলমর্দন করে এবং সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হাঙ্গামা অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে হজম করতে পারে সে সরকার কখনো নিজ দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা করতে পারবে না৷

সরকারের বাহিরে যদি একটা শক্তিশালী বিরোধীদল না থাকে,সেদেশের পররাষ্ট্রনীতি, দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ, জনগণ অধিকার, জনস্বার্থ রক্ষার করতে পারে না। সময় এসেছে জনগণের বিরোধীদলগুলোর দিকে না তাকিয়ে নিজের অধিকার অাদায়ে, দেশের স্বার্থে উদ্ধারে, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে জনগণকেই বিরোধীদলীয়র দায়িত্ব নেওয়ার।

মোঃ সোহরাব হোসেন, যুগ্ম- আহবায়ক, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *