গাইবান্ধা জেলায় ‘প্রবাসী অধিকার পরিষদ’ ১৩০ জন রোজাদারকে ইফতারি বিতরণ করেছে

Share This Story !

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি: ছাত্র অধিকার পরিষদ, গাইবান্ধা জেলা কমিটির তত্বাবধায়নে ‘প্রবাসী অধিকার পরিষদ’ এর পক্ষ থেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ১৩০ জন রোজাদারকে ইফতারি বিতরণ করা হয়েছে।

ইফতারির সময় সমাজের অসহায় শ্রেনীর সকল স্তরের মানুষের হাতে ইফতারি তুলে দেয়া হয়।

এই কাজে সার্বিক সহযোগিতা করেছে ‘প্রবাসী অধিকার পরিষদ’ এর ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন ‘বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ’ জেলা কমিটির এর নেতাকর্মীরা।

এসময় দোয়া ও মাহফিলের আয়োজন করা হয়। উক্ত মাহফিলে প্রবাসীদের জন্য দোয়া করা হয়। তারা যেন সবসময় ভালো থাকেন এবং দেশের জন্য সবসময় উন্নয়ন সাধিত করতে পারে। প্রবাসীরা যেন সবসময় সুস্থ থাকেন এই আশা ব্যক্ত করেছেন জেলা সমন্বয়ক মোঃ- মাহামুদ মোক্তাকিম মন্ডল, সাবেক জেলা সমন্বয়ক মুসতাইন বিল্লাহ মনির এবং উপদেষ্টা নাজমুল হাসান সোহাগ ।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এর সাবেক আহ্বায়ক মাসুদ মোন্নাফ ২১ টি পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বাড়ি বাড়ি গিয়ে দেন। পরিশেষে তারা আনন্দ প্রকাশ করে বলেন যে, এ ধরনের কাজ করতে পেরে তারা সকলেই ধন্য। তাদের এসব কাজ দেখে নতুনরা আরও আগ্রহী হবে মানবতার সেবায়। সেই সাথে তারা ধন্যবাদ জানাছে প্রবাসী অধিকার পরিষদকে, কারণ তাদের জন্যই এসব মহৎ কাজে উৎসাহ পায় এবং মানুষের ভালবাসা পেতে সক্ষম হন।

ইফতার সামগ্রী বিতরণে আর্থিক সহযোগিতা করেন “প্রবাসী অধিকার পরিষদ”।

শতভাগ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার জন্য দুস্থদের ইফতারি আয়োজনের অনুদান ও খরচের হিসেব তুলে ধরেছেন গাইবান্ধা জেলার সমন্বয়ক মোঃ- মাহামুদ মোক্তাকিম মন্ডল ।

ইফতারি প্রোগ্রামের জন্য আর্থিক অনুদানের বিবরণ:

প্রবাসী অধিকার পরিষদ এর পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় ফান্ড প্রদান: ৫০০০টাকা।
গাইবান্ধা জেলা কমিটি নিজস্ব ফান্ড: ( ১২১০) টাকা।
মোট খরচ: ৬,২১০ টাকা।
মোট ১৩০ জনকে ইফতারি বিতরণ করেছে।

গাইবান্ধা জেলার প্রবাসী অধিকার দেওয়ার অর্থের হিসাবের বিবরণ ঃ-

গোবিন্দগঞ্জ, সাঘাটা,ফুলছড়ির ১০০ লোকের হিসাবঃ-

১. মাংস- ১৮০ টাকা দরে ৬কেজি- ১০৮০ টাকা ২.চাল(আতপ) ৫ কেজি ৬৫ টাকা দরে- ৩২৫ টাকা ৩.চাল(২৮) ৪০ টাকা দরে ১০ কেজি-৪০০ টাকা ৪.রসুন ২৫০ গ্রাম- ৪০ টাকা ৫.শুকনা মরিচ- ২০ টাকা ৬. আদা – ২০ টাকা ৭.তৈল ১৫০০গ্রাম- ১৪০টাকা ৮.বাজার ব্যাগ- ৪০ টাকা ৯.গাড়িভাড়া- ১৩০ টাকা ১০.স্যালাইন (টেস্টি) ২০টি-১০০ টাকা ১১.চিনি – ১০ টাকা, ১২. লবণ ৫০০ গ্রাম-২০টাকা ১৩.গরম মসলা-৫০ ১৪.বাদাম কিচমিচ – ২০ টাকা ১৫.প্লেট ১০০ টি(২.৫০)দরে- ২৫০টাকা মোটঃ- ২৬৪৫ টাকা, ব্যাক্তিগত খরচ:-১৫০ টাকা

সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কেন্দ্রীয় নেতার মোন্নাফ ভাইয়ার হিসাবঃ চিনি ৫০০ গ্রাম-৩০ সেমাই-৫০০ গ্রাম=৪৫ গুড়া দুধ প্যাকেট=১০ প্রতি প্যাকেট ৮৫ টাকা। ৮৫*২১=১৭৮৫ আনুষঙ্গিক ৮০ টাকা। ১৭৮৫+৮০=১৮৬৫ প্রবাসি অধিকার পরিষদ=১২০০ আমার ব্যক্তিগত =৬৬৫ টাকা মোট খরচ =১৮৬৫,

গাইবান্ধা সদর উপজেলায়ঃ-সর্বমোটঃ- ১৩০০ টাকা দেওয়া হয়েছে প্রবাসী অধিকার পরিষদ হতে।

অসহায়দের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণের হিসাবঃ- ১. লাচ্ছা ১৪ কেজি- ৫৬০ টাকা ২. চিনি ৭ কেজি- ৪২০ টাকস ৩. দুধ এর প্যাকেট ১৪ টি-১৪০ টাকা মোটঃ- ১১২০ টাকা ইফতার খাওয়ানো৩০ জন অসহায়দের মাঝেঃ- ১.মুড়ি ৬০ টাকা দরে ৩ কেজি- ১৮০ টাকা ২. বুদ – ১০০ টাকা ৩. বেগুনী – ১০০ টাকা ৪.বুনদিয়া- ১০০ টাকা ৫. পিয়াজি- ১০০ টাকা

মোটঃ- ৫৮০ টাকা প্রবাসী অধিকার পরিষদ থেকে গাইবান্ধা জেলাতে দেওয়া হয়েছে ৫,০০০ টাকা।

খরচ হয়েছে সর্বমোটঃ- ৬,২১০ টাকা মাত্র

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *