পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ

Share This Story !

স্টারবার্তা নিউজ: ‘ভিয়েতনামে আটকে পড়া ২৭ বাংলাদেশি ভিপি নুরের উস্কানিতে বাংলাদেশ মিশন দখলের চেষ্টা করেছে’ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে এম আব্দুল মোমেনের এমন বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ ও বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ।

আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ন আহবায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন এবং বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদের সমন্বয়ক মোঃ কবীর হোসেন স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এমন প্রতিবাদ জানানো হয়।

স্টারবার্তা পাঠকদের জন্য প্রেস বিজ্ঞপ্তিটি তুলে হবুহু ধরা হলো:

সংবাদ_বিজ্ঞপ্তি
#তারিখঃ ০৭/০৭/২০২০ ইং

গতকাল বিভিন্ন গণমাধ্যমে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এর একটি বক্তব্য আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। মাননীয় মন্ত্রী তার বক্তব্যে প্রবাসী অধিকার পরিষদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিপি নুরের উসকানিতে ভিয়েতনামে ২৭ বাংলাদেশী সেখানকার মিশন দখলের চেষ্টা করেছে বলে জানিয়েছেন। অথচ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া বিবৃতিতে এ ঘটনায় বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ কিংবা ভিপি নুরের সংশ্লিষ্ট রয়েছে এমন কোন বক্তব্য দেওয়া হয়নি। বরং সেখানেও মানবপাচারকারী চক্তের সংশ্লিষ্টতায় তারা ভিয়েতনাম গিয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তাই ‘বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ’ ও ‘বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ’ যৌথভাবে মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রীর এই অসত্য ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

উল্লেখ্য, মানব পাচারকারী একটি চক্রের মাধ্যমে গত ছয় মাস আগে এই ২৭ বাংলাদেশী ভিয়েতনামে যায় বলে ভুক্তভোগীদের বক্তব্যে থেকে জানা যায়। গত ৬ মাসে তাদেরকে কোন কাজে নিযুক্ত না করে নানাভাবে হয়রানি, নির্যাতন ও নিপীড়নের পর আটক করে রাখা হয় এবং মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। সেখান থেকে তারা কৌশলে পালিয়ে গত ৩ জুলাই দেশে ফিরে যাওয়ার আকুতি জানিয়ে ভিয়েতনামে বাংলাদেশ মিশনের দ্বারস্থ হোন। বাংলাদেশ মিশন ভুক্তভোগীদের সহায়তা না করলে নিরুপায় হয়ে তারা মিশনের বাইরে সড়কে অবস্থান নেয় ও ভিয়েতনাম পুলিশের সহায়তায় ২ হোটেলে ২৭ জনকে ২টি রুমে রাখা হয় বলে আমরা জানতে পারি।

সমস্যা সমাধানে ভুক্তভোগীরা ‘বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ’ এর সাহায্য প্রার্থনা করলে যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি অাকর্ষণের লক্ষ্যে ‘বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ’ এর ফেসবুক পেইজ থেকে ভিডিও বার্তার মাধ্যমে তাদের বক্তব্য তুলে ধরা হয়। যা ছিলো একান্তই মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে ভুক্তভোগীদের সাহায্য করার অভিপ্রায় মাত্র। কাউকে উস্কানি কিংবা দেশের সম্মানহানি করা নয়।

‘বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ’ প্রবাসীদের সকল সমস্যা, সম্ভাবনা, সুযোগ, সুবিধা ও অসুবিধা নিয়ে কাজ করার প্রয়াসে গঠিত হয়েছে। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই সংগঠনটি প্রবাসীদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে কাজ করছে। কিছুদিন পূর্বে কুয়েত, বাহারাইন ও ওমান ফেরত ২১৯ বাংলাদেশীকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে বিতর্কিত ৫৪ ধারায় অন্যায়ভাবে আটকেরও নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ।

মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ‘বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ’ এবং ‘বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ’ এর সংগ্রামী যুগ্ম আহ্বায়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ভিপি নুরুল হক নুরকে জড়িয়ে যে মন্তব্য করেছেন তা পুরোপুরি ভিত্তিহীন, অসত্য বলে প্রতীয়মান হয়েছে। তাই বাংলাদেশ ‘প্রবাসী অধিকার পরিষদ’ ও ভিপি নুরকে জড়িয়ে মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহারের আহবান জানাচ্ছি। বিদ্যমান ক্ষমতাকেন্দ্রিক, দুর্বৃত্তায়িত দুর্নীতি, লুটপাট ও দুঃশাসনের রাজনীতির বিপরীতে তারুণ্যের নেতৃত্বে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ দেশে যে নতুন ধারার গণকল্যানমুখী রাজনীতি প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দিয়েছি আমাদের সে পথচলাকে রুদ্ধ করতে দেশী-বিদেশী নানা গোষ্ঠী ও কুচক্রী মহল ষড়যন্ত্র করছে। তাই দেশবাসীকে অসত্য, গুজব ও বিভ্রান্তিকর সংবাদের বিষয়ে সতর্ক থাকার আহবান জানাচ্ছি।

একই সাথে মহামারির এই সময়ে ভিন্ন মতের দমন-পীড়ন ও দোষারোপের রাজনীতি পরিহার করে সরকারকে দেশের জনগণের জন্য কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছি। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়কে রেমিট্যান্স যোদ্ধা ও বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্বকারী প্রবাসীদের যথাযথ মর্যাদা নিশ্চিত করা ও সমস্যা সমাধানে মনোযোগী হওয়ার আহবান জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের পক্ষে –

মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন
যুগ্ম আহ্বায়ক
বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ
মোবাইলঃ ০১৭৭৩৮২০৯৯৬

বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদের পক্ষে –

মো: কবীর হোসেন
সমন্বয়ক
বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ
মোবাইলঃ +৪৯(০)১৭০১৪৪৪৫২৭

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *