ব্যক্তি স্বাধীনতা আজ হুমকির মুখে!

Share This Story !

স্টারবার্তা প্রতিবেদক : জাতিসংঘ ঘোষিত “আন্তর্জাতিক নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস”এ বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক, আতাউল্লাহ কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিজের এবং সহযোদ্ধাদের নির্মম নির্যাতন চিত্র বর্ণনা করেন।

ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক, আতাউল্লাহ বলেন, “আজ ন্যায্য বিষয়ে কথা বলতে গেলে প্রতিনিয়ত হয়রানীর শিকার হতে হচ্ছে। ব্যক্তি স্বাধীনতা আজ হুমকির মুখে, আমি কোথায় যাব, কি করব, তা রাষ্ট্র নির্ধারণ করে দিচ্ছে।”

পুলিশের ওপর এক ধরনের চাপ থাকে মন্তব্য করে আইনজীবী হাসনাত কাইয়ুম বলেন, “তাজউদ্দীন আহমেদের নাতি গুমের ঘটনায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ তাঁর ভাতিজাকে ফেরত পাওয়ার পর পুলিশকে ধন্যবাদ দিয়েছেন। কিন্তু এই প্রশ্নটা তুলে নাই যে কারা তাঁকে তুলে নিয়েছিল, কেন তাঁকে নেওয়া হয়েছিল। ব্যাপারটি এমন দাঁড়িয়েছে, রাষ্ট্রে এই ধরনের ঘটনা খুবই স্বাভাবিক এবং আমাদের এই ধারণার ফলে রাষ্ট্র সুপ্ত একটি অনুমোদন পাচ্ছে এই সমস্ত অন্যায় করার।”


এটা একটি অস্বাভাবিক রাষ্ট্র মন্তব্য করে হাসনাত কাইয়ুম বলেন, এটা প্রধানমন্ত্রী, এক ব্যক্তির রাষ্ট্র। এটা ব্রিটিশের রানির রাষ্ট্র ছিল, এটা গভর্নর জেনারেলের রাষ্ট্র ছিল, এটা সামরিক শাসকদের রাষ্ট্র ছিল অথবা এটা এখন রাষ্ট্রপতি বা প্রধানমন্ত্রীর রাষ্ট্র। রাষ্ট্রের ক্ষমতা কাঠামোটাই এখন এ রকম যে রাষ্ট্র একজনের হাতের মুঠোয়। যিনি এটাকে হাতের মুঠোয় নিতে পারেন, তিনি যে–ই হোন, একই রকমের ভূমিকা পালন করবেন।’


আইনজীবী সারা হোসেন বলেন, “নির্যাতন বন্ধের পাশাপাশি আমাদের সাংবিধানিক অধিকারসহ নিষ্ঠুর, অমানবিক সাজার শিকারের বিরুদ্ধে কথা বলতে হবে। এসবের বিরুদ্ধে সবাই মিলে আওয়াজ তোলার এখনই সময়।’ মানবাধিকার কমিশন, অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয় ও আইনজীবীদের ভূমিকা আরও জোরদার কেন হচ্ছে না সে ব্যাপারে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

সেখানে আজকের অতিথি ছিলেন:

#ড. শাহদিন মালিক,সংবিধান বিশেষজ্ঞ। 
#অধ্যাপক আসিফ নজরুল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 
# ব্যারিস্টার সারাহ হোসেন, সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবী।
# নুর খান লিটন, মানবাধিকার কর্মী, বাংলাদেশ। 
# হাসনাত কাইয়ুম, আইনজীবী, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট।
# লিমন, ২০১১ সালে র‍্যাবের গুলিতে পা হারানো। 
# আতাউল্লাহ, যুগ্ম আহবায়ক, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদ।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *